বাংলাদেশের ক্রিকেট বাংলায় ওয়েব সাইটে চলমান খেলাগুলো পরীক্ষামূলক লাইভ প্রর্দশন করা হচ্ছে। দর্শকগন বাংলা ফন্টে (বাংলায়ক্রিকেট.বাংলা) টাইপ করে এই ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে পারবেন।
ক্রিকেট রঙ্গ

খেলা ভন্ডুল করেই দিয়েছিল পোড়া টোস্ট!

খবরঃ ১৬ নভেম্বর ২০১৭ টোস্ট বানাতে গিয়ে আগুন ধরিয়ে ফেলেছিলেন লায়ন, এতেই বিশ্রাম মিলল খেলোয়াড়দের। ফাইল ছবিআপনার দল ব্যাটিং করছে। জয় একেবারেই নাগালে, আর সারাটা দিন পড়েও আছে। আপনাকে ব্যাট হাতে নামতে হবে বলে মনে হয় না। কাল ব্রিসবেনে নিউ সাউথ ওয়েলসের ড্রেসিংরুমে বেশ অলস সময় কাটাচ্ছিলেন নাথান লায়ন। ভাবলেন এই সময়ে একটা টোস্ট বানিয়ে খেলে মন্দ হয় না। আর সেই টোস্ট বানাতে গিয়েই দলের জয়টাই প্রায় পুড়িয়ে ফেলতে বসেছিলেন এই স্পিনার। আগুনটাগুন লেগে বিশাল কাণ্ড।

শেষমেশ ঠিক সময়ে আগুন নেভানো গেছে। আর জয়টাও বেশি দূরের ছিল না। না হলে যতক্ষণ খেলা বন্ধ ছিল, লক্ষ্য বেশি দূরের হলে হয়তো ম্যাচটাই ড্র হয়ে যেত! পোড়া টোস্টের কারণে কোনো ম্যাচ ড্র? অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া ফার্স্ট ক্লাস তো বটেই, ক্রিকেটেও এমন নজির খুব বেশি আছে কি?

লায়ন কাল ম্যাচ শেষে বলেছেন, ‘প্রথম টোস্টটা বেরিয়ে এল, দেখে খুব একটা সন্তুষ্ট হতে পারলাম না। এরপর আবার টোস্টারে ঢোকালাম। এরপর খেলা দেখতে বসে ভুলেই গিয়েছিলাম।’ আর এর থেকেই ধরে আগুন। বেজে ওঠে আগুনের সতর্কঘণ্টা। থেমে যায় খেলা। ডাক পড়ে আগুন নেভানো কর্মীদের।

পুরো একটা গ্যালারি ফাঁকা করতে হয়, যেখানে মিডিয়া কর্মী, খেলোয়াড়, স্কোরাররা ছিলেন। আধা ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর শুরু হয় খেলা। প্রয়োজনীয় বাকি ১৮ রান নির্বিঘ্নে তুলে ফেলে কুইন্সল্যান্ডকে ৬ উইকেটে হারায় নিউ সাউথ ওয়েলস।

আগুন যদি আরও ছড়িয়ে পড়ত? খেলা যদি শুরু হতো আরও দেরিতে? ১৮-র বদলে লক্ষ্যটা যদি এমন দূরে থাকত যে ম্যাচ হয়ে গেল ড্র? টোস্ট বানাতে গিয়ে ম্যাচ ড্র! লায়ন হেসে বলেছেন, ‘সবকিছুরই তো একটা প্রথম থাকে, তাই না?’ সূত্র: ক্রিকইনফো।